ঢাকাবৃহস্পতিবার , ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২২
  1. Campas
  2. International news
  3. Media
  4. Parson
  5. অগ্নিকাণ্ড
  6. অপরাধী
  7. আইন-আদালত সাজা
  8. আত্মহত্যা
  9. আন্তর্জাতিক ডেস্ক
  10. আবহাওয়া
  11. ইতিহাসের এই দিনে
  12. ইসলাম
  13. কলামিস্ট
  14. কৃষি
  15. ক্যাম্পাস
আজকের সর্বশেষ সব খবর

গুগলের ডুডলে শোভা পায় যার ছবি

omar al sani
ফেব্রুয়ারি ২৪, ২০২২ ১২:০১ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

গুগলের ডুডলে শোভা পায় যার ছবি

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক পাঠক: 

হিন্দি চলচ্চিত্রের সর্বাধিক জনপ্রিয় ও প্রভাবশালী ব্যক্তিত্ব হিসেবে গণ্য করে হয় যাকে তিনি হলেন মধুবালা।এছাড়াও তিনি ছিলেন ভারতীয় চলচ্চিত্রে ইতিহাসের সর্বাধিক সুন্দর- আকর্ষণীয় অভিনেত্রী।মধুবালা অনেক হিন্দি ধ্রুপদী চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছিলেন।
মধুবালার আসল নাম মমতাজ জাহান বেগম দেহলভী।তিনি ১৪ ফেব্রুয়ারি ১৯৩৩, দিল্লীতে এক হত-দরিদ্র পরিবারে জন্ম গ্রহণ করেন।তার বাবা পাকিস্তানের পেশোয়ারে এক টোব্যাকো কোম্পানিতে কাজ করতেন।তার চাকুরী চলে যাওয়ায় সংসারে অভাব প্রবেশ করে।সংসারের অভাব দূর করতে মধুবালা অভিনয়ে যোগ দেন।
মমতাজ জাহান নাম দিয়ে অভিনয় শুরু করলেও অভিনেত্রী দেবিকা রাণী তার নাম দেন ‘মধুবালা’।মধুবালা বলিউডে অভিনয় শুরু করেন শিশু শিল্পী হিসেবে।মাত্র ১৪ বছর বয়সে পরিণত নারীর ভূমিকায় অভিনয় করেন ‘নীলকমল’ চলচ্চিত্রে রাজ কাপুরের বিপরীতে নায়িকা হয়ে।১৯৪৯ থেকে ১৯৬৪ সাল পর্যন্ত মাত্র ২৯ বছরের অভিনয় জীবনে তিনি প্রায় ৭০ টি চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন।তার অভিনীত ‘মুঘলে আজম'(১৯৬০) সর্বশ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্র। এছাড়াও তার উল্লেখযোগ্য চলচ্চিত্র জাওলা,শাবারী,হাফ টিকিট, ফাগুন,পুলিশ, কালা পানি,হাওড়া ব্রিজ, দো ওস্তাদ প্রভৃতি।
মধুবালা ব্যক্তিগত জীবনে কয়েকবার সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েছিলেন। সে সময়ের জনপ্রিয় অভিনেতা দিলীপ কুমারের সাথে তার প্রেম বেশ জনপ্রিয়তা পেলেও পাঁচ বছরের সম্পর্কে চির ধরে।দিলীপ কুমারের দুটি শর্ত দিয়েছিলেন তাকে প্রথমত, তাকে পরিবার ছাড়তে হবে। দ্বিতীয়ত,ছাড়তে হবে তার অভিনয়। মধুবালা অভিনয় ছাড়তে রাজি হন।কিন্তু নিজের বাবা মাকে ছাড়তে নারাজ ছিলেন তিনি।ফলশ্রুতিতে ভেঙে যায় তাদের সম্পর্ক। এরপরে বিখ্যাত গায়ক কিশোর কুমারের সাথে তিনি ১৯৬০ সালে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন।যতদিন মধুবালা বেঁচে ছিলনে ততদিন তাদের সম্পর্ক ছিলো।
জন্মগত ভাবে মধুবালার হৃদপিন্ডে একটি ছিদ্র ছিলো। ১৯৫০ সালে তার ভেন্ট্রিকুলার সেফটাল ডিফেক্ট (ভিএস ডি) নামক শারীরিক সমস্যা ধরা পড়ে।ক্যারিয়ারের স্বার্থে পরিবারের পক্ষ থেকে এই অসুখের কথা গোপন করা হয়।বিবাহের পরে তিনি কিশোর কুমারের সাথে লন্ডনে যান।সেখানকার চিকিসকরা তাকে জানিয়ে দেন তিনি সর্বোচ্চ এক বছর বাঁচবেন।কিন্তু তিনি এর পরে আরও ৯ বছর বেঁচে ছিলেন।অবশেষে ১৯৬৯ সালের ২৩ শে ফেব্রুয়ারি তিনি মাত্র ৩৬ বছর বয়সে মৃত্যুবরণ করেন।
তার জীবনের সল্প সময়ে তিনি অধিক জনপ্রিয় হয়ে উঠেছিলেন।আজও দর্শক কুলে তিনি তার স্থানে অক্ষতভাবে অবস্থান করেন।তার প্রতি সন্মান জ্ঞাতার্থে, ১৪ ফেব্রুয়ারী২০১৯ সালে তার ৮৬ তম জন্মদিনে গুগল ডুডল তৈরী করে সন্মাননা প্রদান করেন।

প্রিয় পাঠক, ডেইলি খবরের ডটকমে আপনিও লিখতে পারেন। প্রবাসে আপনার কমিউনিটির নানান খবর, ভ্রমণ, আড্ডা, গল্প, স্মৃতিচারণসহ যে কোনো বিষয়ে লিখে পাঠাতে পারেন। সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন khoborernews@gmail.com এই ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।

x
%d bloggers like this: